আগুন থেকে বাঁচতে করণীয়

হঠাৎ আগুন লাগলে কি করবেন, আপনার করণীয় কি?

হঠাৎ আগুন লাগলে কি করবেন? 

সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি ভয়াবহ আগুনের দুর্ঘটনা কেড়ে নিয়েছে শতাধিক জীবন। অথচ আগুন আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসগুলোর ভিতরে পড়ে। আগুন ছাড়া কি আমাদের চলে? 

ইদানিং বেড়ে গেছে আগুন দুর্ঘটনা। এর সবচেয় বড় কারণটি হচ্ছে আমাদের সচেতনতার অভাব। তাছাড়া যত্রতত্র নিয়ম না মেনে রাসায়নিক বা দাহ্য পদার্থ আবাসিক এলাকায় গুদামজাত করা, নকশা অনুযায়ী বহুতল ভবন নির্মাণ না করা ইত্যাদি। 

কিন্তু আগুন যদি ধরেই যায়, আর আপনি আটকা পড়েন সেখানে তাহলে কি করবেন? আমাদের আজকের আলোচনা তা নিয়ে।

মাত্র এক মাসের ব্যবধানে চকবাজারের শোক কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই বনানীর এফআর টাওয়ারে আগুন আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে আমরা কতটা অনিরাপদ।

আপনি যে অফিসে চাকরি করছেন, আপনি কি জানেন আগুন লাগলে সেই ভবনের সক্ষমতা কতটুকু? হঠাৎ যদি আগুন লেগে যায় তাহলে আপনার করণীয় কি হবে? 

আসুন হঠাৎ আগুন থেকে বাঁচতে আমাদের করণীয় কি তা জেনে নিই।

১. মাথা ঠান্ডা রাখুন

আগুন লাগলে যেটা হয় তা হলো প্যানিক সৃষ্টি। আগুন লেগেছে এটা শুনার সাথে সাথে আমরা পড়িমরি করে দিগ্বিদিক ছুটি৷ কিন্তু যেটা প্রয়োজন তা হলো মাথা ঠান্ডা রাখা। মাথা ঠান্ডা রেখে ভাবুন আপনার এখন করণীয় কি। সেখান থেকে বের হওয়ার সঠিক পথটি খুঁজুন।  


২. আগুনের উৎস সম্পর্কে জানার চেষ্টা করুন 


জানার চেষ্টা করুন আগুনটি কোথায় লেগেছে৷ আপনার ফ্লোরে না অন্য কোন ফ্লোরে৷ ফায়ার এক্সিট দিয়ে বের হবার চেষ্টা করুন। হাতের কাছে অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র থাকলে তা ব্যবহার করুন।



৩. আগুন নেভানোর চেষ্টা করবেন কিনা


যদি ছোটখাট আগুন লাগে তাহলে তা দ্রুত নেভানোর চেষ্টা করুন। পানি থাকলে তা ব্যবহার করুন। অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র ব্যবহার করুন। যদি দেখেন আগুন আপনার আয়ত্তের বাইরে তাহলে তা কখনোই নিভানোর চেষ্টা করবেন না। দ্রুত স্থান ত্যাগ করুন।



৪. দামী জিনিসপত্র নিবেন নাকি নেবেন না


এই ভুলটা আমরা সবাই করি। আগুন লাগলে আমরা প্রথমেই আমাদের দামী জিনিসপত্র সাথে নেওয়ার চেষ্টা করি। সেটা কখনো করবেন না। জীবনে বেচে থাকলে সেরকম অনেক জিনিসই পাবেন। কিন্তু জীবনটা চলে গেলে আর পাবেন না। মনে রাখবেন আপনার চেয়ে মূল্যবান কোনকিছু হতে পারে না। যতদ্রুত সম্ভব নিরাপদ স্থানে যাওয়ার চেষ্টা করুন। 

 

আগুন থেকে বাঁচতে করণীয়



৫. ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিন বা ফোন করুন ৯৯৯ এ


আগুন লাগলে আমরা দিশেহারা হয়ে পড়ি। প্রথমেই চেষ্টা করুন ফায়ার সার্ভিস বা নিরাপত্তা বাহিনীকে খবর দিতে৷ চেষ্টা করুন জরুরী সেবার নাম্বারগুলো মোবাইলে সেভ করে রাখতে৷ এখন তো আরো সহজ হয়েছে,  ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করলেই হয়। তাদের জানান যত দ্রুত সম্ভব।



৬. কাপড়ে আগুন লাগলে কি করবেন


কাপড়ে আগুন লাগলে বেশির ভাগ মানুষই দৌড় দেয়। কখনোই দৌড় দিবেন না। এতে বাতাস পেয়ে আগুন আরো বেশি ধরে যায়। কাপড়ে আগুন লাগলে দ্রুত শুয়ে পড়ুন, হাত দিয়ে চোখ মুখ ঢেকে ধরে বারবার গড়াগড়ি দিতে থাকুন, যতক্ষণ না আগুন নেভে।



৭. ঘর ধোয়ায় ভর্তি হলে কি করবেন


সাম্প্রতিক সময়ের দুর্ঘটনাগুলো থেকে দেখা যাচ্ছে আগুনে পুড়ে যত মানুষ মারা যাচ্ছে তার চেয়ে বহুগুণ মানুষ মারা যাচ্ছে ধোঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে।  

ঘর কালো ধোয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়লে অর্থ্যাৎ ঘর ধোঁয়ায় পরিপূর্ণ হয়ে গেলে জানালা লেগে দেবেন না। সব জানালা খোলা রাখার চেষ্টা করুন এতে করে ধোয়া বাইরে বের হতে পারবে। তা হলে সেই ধোঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে আপনি আরো বেশি বিপদে পড়তে পারেন।  

ধোঁয়ার মধ্যে মুখ চোখ না ঢেকে কখনো বের হতে যাবেন না। প্রথমেই হাতের কাছে যা আছে তাই দিয়ে মুখ নাক ঢেকে নিন।যদি সম্ভব হয় তাহলে সেই কাপড়টি পানিতে ভিজিয়ে নিন। প্রয়োজন হলে পরনের শার্ট গেঞ্জি খুলে তা দিয়ে মুখ চোখ ঢেকে নিন। তারপর হামাগুড়ি দিয়ে ঘর থেকে বের হবার চেষ্টা করুন। 



৮. আগুন ঘর থেকে কতদূরে


ঘর থেকে বের হবার আগে, দরজার হাতলে হাত দিন, যদি দেখেন হাতল গরম, হাত দেওয়া যাচ্ছে না। তাহলে দরজা খুলে বের হওয়া বিপদজনক হতে পারে৷

যদি দেখেন দরজার নিচ দিয়ে অনর্গল ধোয়া ঢুকছে বুঝতে হবে আগুন আপনার থেকে বেশি দূরে নেই। দরজা দিয়ে বের হওয়ার চেষ্টা করা থেকে নিজেকে বিরত রাখুন। অন্য কোন ভাবে চেষ্টা করুন।



৯. ঘর থেকে বের হওয়ার উপায় না থাকলে


ঘর থেকে বের হওয়ার কোনো উপায় যদি না থাকে তাহলে জানালা দিয়ে রঙ্গিন কাপড় নাড়াতে থাকুন। যেভাবে পারেন দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করে যেতে হবে যেন ফায়ার সার্ভিস বা বাইরের লোকেরা বুঝতে পারে যে আপনি ভিতরে আছেন। 

 

আগুন থেকে বাঁচতে করণীয়



১০. জানালা দিয়ে লাফ দিবেন কিনা


এ কাজটি কখনো করতে যাবেন না। উত্তেজিত না হয়ে মাথা ঠান্ডা রেখে অন্য কোন উপায় বের করার চেষ্টা করুন। জানালা দিয়ে লাফিয়ে পড়লে বাঁচার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। 



১১. ইলেকট্রনিক সুইচ অফ করবেন কিনা


আগুন লাগলে প্রথমেই যেটা করবেন তা হলো ইলেকট্রিক সকল সুইচ অফ করে দেওয়া। সব সময় চেষ্টা করবেন ব্যবহার করার পর সব ইলেকট্রোনিক সুইচ অফ করে রাখার। রাতে ঘুমানোর আগে একবার দেখে নিন অপ্রয়োজনীয় সুইচ অফ করেছেন কিনা।



১২. লিফট ব্যবহার করবেন কিনা


আগুন লাগলে কখনোই লিফট ব্যবহার করবেন না। মনে রাখবেন লিফটে উঠেছেন মানে আপনার মৃত্যুকে আপনি কাছে ডেকে এনেছেন। চেষ্টা করুন সিড়ি দিয়ে বের হয়ে আসার। 



১৩. ছাদে উঠবেন কিনা


যদি আগুন আপনার উপরের ফ্লোরে লাগে তাহলে সিড়ি ব্যবহার করে বাইরে বের হয়ে আসার চেষ্টা করুন। ছাদে যাওয়াত চেষ্টা করবেন না।

যদি আগুন আপনার নিচের ফ্লোরে লাগে। তাহলে প্রথমেই দেখুন আপনি ফায়ার এক্সিট ডোর দিয়ে বের হয়ে আসতে পারছেন কিনা। যদি সম্ভব না হয় তাহলে ছাদে উঠার চেষ্টা করুন। এবং অবশ্যই সম্ভব হলে ভেজা কাপড় দিয়ে মুখ চোখ ঢেকে ফেলবেন।



১৪. বাথরুমে নিজেক আটকে ফেলবেন কিনা 


অনেকের ভুল ধারণা আছে যে, আগুন লাগলে বাথরুমে বালতির ভিতরে পানি নিয়ে বসে থাকলে হয়তো রক্ষা পাওয়া যাবে। এ কাজটি কখনো করতে যাবেন না। বাথরুম সাধারণত ছোট হয়, এতে ধোয়া অল্পতেই পরিপূর্ণ হয়ে যায়। দম আটকে মারা যাওয়ার সম্ভাবনা এতে বেড়ে যায়।

সম্ভব হলে বাথরুমে পানি ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। জানালা, দরজা আর ওয়ালে পানি দিয়ে ভিজিয়ে দিতে পারেন এতে কিছুটা হলেও বেশি সময় পাওয়া যাবে।  



১৫. নিজেকে ভেজা কাপড়ে জড়িয়ে নিন 



আগুন লাগলে শরীরে কাপড় রাখবেন না। বিশেষ করে সিনথেটিক কাপড় খুলে ফেলুন যত দ্রুত সম্ভব। আশে পাশে চাদর জাতীয় বড় কাপড় থাকলে তা পানিতে ভিজিয়ে শরীরের জড়িয়ে রাখুন।

ঘরের জানালা দরজার ফুটো ভেজা কাপড় দিয়ে আটকে দেওয়ার চেষ্টা করুন যাতে ধোয়া ভিতরে আসতে না পারে৷

 

শিশু এবং প্রতিবন্ধীদের সাহায্য করুন আগুন থেকে দূরে সরে যেতে। একমাত্র আমাদের সচেতনতায় পারে আগুনের মতো ভয়াবহ দুর্ঘটনা রোধ করতে। আসুন নিজে সচেতন হই, অন্যকে সচেতন করি। সবাই নিরাপদে থাকুন, সুস্থ্য থাকুন। অভিযাত্রীর পক্ষ হতে সবার জন্য শুভ কামনা।     




Share this

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *